Slideshows

http://www.bostonbanglanews.com/index.php/modules/mod_news_pro_gk1/components/modules/mod_news_pro_gk1/style/templates/gk_twn/media/system/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

শহীদ জননী জাহানারা ইমামের জীবনী ছড়িয়ে দেয়ার প্রত্যয় প্রজন্মেদের

সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন, মো:নাসির, ওসমান গনি, সুহাস বডুয়া, বাপসনিঊজ:‘শারীরিকভাবে অসুস্থ এবং মুক্তিযুদ্ধে স্বামী ও সন্তান হারানো জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে সৃষ্ট গণআন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে একাত্তরের ঘাতকদের বিচার শুরু হয়েছে বাংলাদেশে। শহীদ জননী জাহানারা ইমামের এমন অবিস্মরণীয় জীবন সম্পর্কে প্রবাস প্রজন্মকে অবহিত রাখতে হবে এবং সকলকে অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ রচনায় চলমান কর্মসূচির সাথে একাত্ম থাকতে হবে।’ এসব কথা বলেন ‘আমেরিকায় জাহানারা ইমামের শেষ দিনগুলি’ গ্রন্থের রচয়িতা ও নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান ড. নূরন্নবী। শহীদ জননী জাহানারা ইমামের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ৬ আগস্ট শনিবার বস্টনে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নিউইংল্যান্ড শাখার উদ্যোগে। এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন হোস্ট সংগঠনের সভাপতি ড. বামন দাসগুপ্ত। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন বিজ্ঞানী ড. জিনাত নবী, হোস্ট সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান, নিউ ইংল্যান্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি এম এ গণি ও সাধারন সম্পাদক সুহাষ বড়য়া, কবি বদিউজ্জামান নাসিম, অর্থনীতিবিদ ড. শিবলী সাদিক প্রমুখ।খবর বাপসনিউজ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. নবী বলেন, ‘জাহানারা ইমামের দেশাত্মবোধ কতটা গভীর ছিল, সে ইতিহাস প্রবাস প্রজন্মকে জানাতে হবে সবিস্তারে। তার সম্পর্কে মানুষ যত জানবে, ততোই উজ্জ্বল হবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস।’

alt


শত বাধা-বিপত্তি ডিঙ্গিয়ে একাত্তরের ঘাতকদের বিচার শুরু করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রবাসীদের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানিয়ে ড. নবী বলেন, ‘সকল ঘাতকের বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত সকলকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অবিচল আস্থাশীল থাকতে হবে।’সভাপতির বক্তব্যে ড. বামন দাসগুপ্ত বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের সন্ত্রাসবাদে সম্পৃক্ত হবার ঘটনাটি সত্যি উদ্বেগজনক। এহেন পরিস্থিতির অবসানে প্রতিটি অভিভাবককে সজাগ থাকতে হবে। ছেলে-মেয়েরা স্কুল-কলেজে যাতায়াতের সময় কোথায় যাচ্ছে, কার সাথে মিশছে-সবকিছু নখদর্পনে রাখতে হবে। সময় থাকতেই পদক্ষেপ না নিয়ে ওদের ফেরানো কঠিন হয়ে পড়বে।’ ‘আইন করে কিছু করা সম্ভব হবে না। প্রয়োজন সামাজিক প্রতিরোধ। জঙ্গিবাদ যে কোন ধর্মই সমর্থন করে না-এটি ওদেরকে জানাতে হবে। নীরিহ মানুষ হত্যা করে কেউই জান্নাতে যেতে পারে না-এটি ইসলাম ধর্মেও স্পষ্টভাবে উল্লেখ করেছে-তা নতুন প্রজন্মকে অবহিত করতে হবে।’
সবার প্রারম্ভে ১৯৭৫-এর ১৫ আগষ্ট স্বপরিবারে নিহত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, ডাকা কেন্দ্রিয় কারাগারে চার জাতীয় নেতা, একাত্তর-এর মুক্তিযুদ্ধ ও ১৯৫২- এর মহান ভাষা আন্দোলনসহ আজ পর্যন্ত সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নিহতদের স্মরনে সভায় দাঁড়িয়ে এক মিনটি কাল নিরাবতা পালন করা হয়।


Add comment


Security code
Refresh